লকআপে প্রতারকের পাশে কম্বল পেতে রাত কাটালেন অভিনেতা বিক্রম

গ্রেফতারির পর এক প্রতারকের সঙ্গে থানার লক আপেই সারা রাত কাটাতে হল জনপ্রিয় ধারাবাহিক ‘ইচ্ছেনদী’র অনুরাগ ওরফে অভিনেতা বিক্রম চট্টোপাধ্যায়কে!

শুনলে অবাক মনে হতে পারে, কিন্তু এটাই বাস্তব৷ গাড়ি দুর্ঘটনায় মডেল সোনিকা সিংহ চৌহানের মৃত্যুর ঘটনায় অনিচ্ছাকৃত খুনের অভিযোগে বৃহস্পতিবার রাতে কসবা থেকে গ্রেফতার করা হয়েছে বিক্রমকে৷ সেই রাতেই তাকে টালিগঞ্জ থানায় এনে লকআপে রাখা হয়৷ প্রতারণার অভিযোগে ধৃত এক অভিযুক্তের সঙ্গেই গ্রেফতারির প্রথম রাত কাটিয়েছেন অভিনেতা বিক্রম চট্টোপাধ্যায়৷ অভিনেতা বলে তাঁকে বিশেষ কোনও সুবিধা দেয়নি পুলিশ৷ অন্য অভিযুক্তদের মতোই মেঝেতে কম্বল পেতে ঘুমাতে হয়েছে৷ সকালে থানার তরফে দেওয়া চা-বিস্কুট দিয়ে ব্রেকফাস্ট সারার পরে আলিপুর আদালতে নিয়ে যাওয়া হয়েছে তাঁকে৷

 পুলিশি হেফাজতে তাঁকে অন্য অভিযুক্তদের মতোই সবরকম নিয়ম মেনে চলতে হবে৷ অন্য অভিযুক্তদের যেমন থানার ক্যান্টিন থেকে খাবার দেওয়া হয় বিক্রমকেও তাই খেতে দেওয়া হবে৷ বিলাশবহুল আবাসনে শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত ঘরে ঘুমাতে অভ্যস্ত বিক্রমকে আপাতত টালিগঞ্জ থানার আলোআধাঁরি লকআপে কাটাতে হবে৷ সেখানে অভিযুক্তদের জন্য ফ্যানের ব্যবস্থা করা থাকলেও ছোট কুঠুরির মতো লকআপে এই ভ্যাপসা গরম আবহাওয়ায় টেকা দায়৷ আপাতত সেখানেই দিনরাত কাটবে বিক্রমের৷ টালিগঞ্জ থানার এক পুলিশকর্মী বলেন, ‘‘উনি যে জীবনযাত্রায় অভ্যস্ত এখানে তার কিছুই পাবেন না৷ এই পরিবেশে মানাতে পারবেন কিনা সন্দেহ৷ তবে আমরা সবসময় খেয়াল রাখছি৷ যাতে উনি অসুস্থতা বোধ না করেন সেই দিকে খেয়াল রাখা হচ্ছে৷’’

পুলিশ সূত্রে খবর, অভিনেতা বিক্রমকে যখন গ্রেফতার করে থানায় নিয়ে আসা হয়, তখন লকআপে অনিমেশ মজুমদার নামে এক অভিযুক্ত ছিল৷ গাড়ি ইএমআই শোধ না করে গাড়ি বিক্রি করে দেওয়ার অভিযোগে তাকে গ্রেফতার করেছে টালিগঞ্জ থানার পুলিশ৷ বিক্রমকে লকআপে ঢোকানোর পরে অনিমেশ প্রথমে বুঝতে না পারলেও, পরে বিক্রমকে চিনতে পারে৷ কয়েকবার জোর করে কথা বলারও চেষ্টা করে৷ বিক্রম প্রথমদিকে চুপ থাকলেও পরে অনিমেশের সঙ্গে কিছু কথা বলেছে৷ অন্য অভিযুক্তদের মতোই বিক্রমকেও ঘুমানোর জন্য কম্বল দেওয়া হয়েছিল৷ সেটি পেতেই অনিমেশের পাশে কিছুসময় ঘুমিয়েছিলেন এই অভিনেতা৷

Related posts

Leave a Reply